চট্টগ্রামের পাঠকপ্রিয় অনলাইন

মিলির চলচ্চিত্রে কাজ না করার যত কারন

সিটিজি বাংলা২৪ ডটকম:: ২০০৯ সালে গিয়াসউদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘মনপুরা’ চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেয়েছিল। এ ছবির মাধ্যমে অভিষেক হয় অভিনেত্রী ফারহানা মিলির। ছবিটি ব্যবসাসফল হলেও দীর্ঘ ছয় বছরেও ফারহানা মিলিকে আর কোনো চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়নি। এর কারণ কী? জানতে চাইলে ফারহানা মিলি ছবিতে অভিনয় না করার কয়েকটি কারণের কথা বলেন।

ফারহানা মিলি বলেন, ‘মনপুরা ছবি মুক্তির পর আমি অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করার প্রস্তাব পেয়েছি। সেই সময় প্রতিদিনই প্রায় নতুন ছবি করার প্রস্তাব পেতাম। কিন্তু কোনো ছবিতে কাজ করার আগ্রহ আমি পাইনি। এর প্রধান কারণ হলো, ভালো গল্প ও চিত্রনাট্যের অভাব। দ্বিতীয় কারণ হলো, আমি চাইনি এমন কোনো চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে যেখানে গল্পের কোনো গভীরতা থাকবে না। ভাসা ভাসা কাহিনীনির্ভর চলচ্চিত্রে কাজ করার কোনো ইচ্ছে আমার কোনোদিন ছিল না। আমি এমন চলচ্চিত্রে কাজ করতে চাই বা চেয়েছি যেখানে গল্পের মজবুত ভিত্তি থাকবে। আমি বাংলাদেশের অনেক চলচ্চিত্রে দেখি নায়িকা স্কার্ট ও শর্ট ড্রেস পরে কলেজে যাচ্ছে। আচ্ছা, আমাদের দেশে কেউ কি স্কার্ট পরে কলেজে যায়? যেহেতু যায় না, তাই আমরা চলচ্চিত্রে কেন এই পোশাক দেখাব?’

‘তৃতীয় কারণ হলো, আমি এমন ছবি অপছন্দ করি যেখানে নায়ক-নায়িকা হাতিরঝিলে প্রেমের সংলাপ বলার পরপর গান শুরু হয়ে যায়। আর সেই গানের দৃশ্যায়ন সুইজারল্যান্ডে দেখানো হয়। আমি বাণিজ্যিক ছবিতে কাজ করার বিপক্ষে তা কিন্তু নয়। কিন্তু সেই ছবির গল্প বাস্তবধর্মী ও বিশ্বাসযোগ্য হতে হবে। এখন যেসব বাণিজ্যিক ছবি হচ্ছে সেগুলোর বেশির ভাগই নকল ছবি।’

মিলি আরো বলেন, ‘ছবি হিট করার জন্য যা করার প্রয়োজন নেই সেটাও আমরা করছি। সব ছবিতে কি আইটেম গান রাখার প্রয়োজন আছে? কেন প্রতিটা ছবিতে একটা, দুইটা আইটেম গান রাখতে হবে? আমি এটা বুঝি না। আপনি ইরানি ছবি দেখেন সেখানে ছোট একটা বিষয় নিয়েও ভালো ছবি নির্মিত হচ্ছে। আচ্ছা ‘মনপুরা’র কথাই বলি, সেখানে কিন্তু আমি নাচিনি। তারপরও দর্শক কি ছবিটি দেখতে যায়নি? দর্শক কিন্তু ‘মনপুরা’ দেখেছে। তাহলে এতে প্রমাণিত হয় যে দর্শক ভালো ও মৌলিক গল্পের ছবি দেখতে পছন্দ করে। আমরা এখনো প্রেম-কাহিনীতেই ডুবে আছি। এর বাইরে আমরা যে কেন যেতে পারছি না, এর কারণ আমি নিজেও জানি না। আর এসব কারণে আমাকে চলচ্চিত্রে আর কেউ দেখতে পায়নি।’

READ  অপুকে শাকিবের ডিভোর্স দেয়ার আসল গোমর ফাঁস!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*