চট্টগ্রামের পাঠকপ্রিয় অনলাইন

সিএমপি’র মাসিক কল্যান সভায় বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে সনদ প্রদান

সিটিজি বাংলা,

 

 

 

চট্টগ্রাম নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইন্সের মাল্টিপারপাস শেডে সিএমপি’র মাসিক কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

এতে গেল মে মাসে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, মামলার রহস্য উদঘাটন, আসামী গ্রেফতার ও ভাল কাজের জন্য বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন স্তরের ৮৭ জন পুলিশ সদস্য ও সিভিল স্টাফদেরকে নগদ অর্থ ও সম্মাননা সনদ প্রদান করেন সিএমপি কমিশনার।

 

২৮ জুন বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান নিজে উপস্থিত থেকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন স্তরের ৮৭ জন পুলিশ সদস্য ও সিভিল স্টাফদেরকে নগদ অর্থ ও সম্মাননা সনদ প্রদান করেন।

 

মাসিক কল্যান সভায় সিএমপি কমিশনার প্রত্যেক বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বেশ কয়েকটি নির্দেশনা দেন। এ সময় তিনি চট্টগ্রাম নগরের সন্ত্রাসী ও প্রভাবশালীদের কাছে থাকা অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে পুলিশ কর্মকর্তাদের বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

 

সিএমপি কমিশনার তার বক্তব্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এলাকাভিত্তিক বিট পুলিশিংয়ে জোর দেন। তিনি এখন থেকে প্রত্যেক শনিবার বিট এলাকায় সভা করার নির্দেশ দেন সংশ্লিষ্ট বিট পুলিশের কর্মকর্তাদের। উক্ত সভায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ, মাদক ও অস্ত্র উদ্ধারে থানা, ডিবি সহ অন্যান্য সংস্থাকে যৌথভাবে কাজ করার পরামর্শও দেন পুলিশ কমিশনার।

 

মাসিক কল্যান সভায় ৮৭ জন পুলিশ সদস্য ও সিভিল স্টাফরা নগদ অর্থ ও সম্মাননা সনদ পেয়েছেন। তার মধ্যে শ্রেষ্ঠ বিভাগ, শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার, শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি), শ্রেষ্ঠ থানা, শ্রেষ্ঠ পরিদর্শক, শ্রেষ্ঠ উপ-পরিদর্শকের সম্মাননা সনদ পেয়েছেন।

 

যারা পেলেন যথাক্রমে: উপ-পুলিশ কমিশনার (পশ্চিম) মো. ফারুক উল হক,
সহকারী পুলিশ কমিশনার (পাঁচলাইশ জোন) দেবদূত মজুমদার,
সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (ডিবি-পশ্চিম) মোহাম্মদ মঈনুল ইসলাম,
আকবরশাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন,
সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন,
পাহাড়তলী থানার এসআই অর্ণব বড়ুয়া।

READ  ‘জঙ্গিরা নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে’

 

 

এ মাসিক কল্যান সভায় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) মাসুদ উল হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) কুসুম দেওয়ান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) শ্যামল কুমার নাথ, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর)হারুন-উর-রশিদ হাযারী, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. আব্দুল ওয়ারীশ, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মোস্তাইন হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (পশ্চিম) মো. ফারুক উল হক, উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর) সৈয়দ আবু সায়েম, উপ-পুলিশ কমিশনার (সিএসবি) মো. মোখলেছুর রহমান, উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি-উত্তর) হাসান মো. শওকত আলী, উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি-বন্দর) মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-বন্দর) ফাতিহা ইয়াছমিনসহ র্যা ব, সিআইডি, পিবিআই, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ, এপিবিএন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের প্রতিনিধিসহ প্রসাশনের বিভিন্ন কর্মকর্তাবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*