চট্টগ্রামের পাঠকপ্রিয় অনলাইন

ইন্দোনেশিয়ায় আবারো ফেরিডুবির ঘটনায় নিহত ২৯, নিখোঁজ ১৪০

সিটিজি বাংলা, আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

 

 

ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়াসি দ্বীপে ফেরি ডুবিতে ২৯ যাত্রী মারা গেছেন। এ দুর্ঘটনায় নিখোঁজ আছেন ১৪০ জন।
৩ জুলাই মঙ্গলবার উদ্ধারকর্মীদের অভিযানের মাধ্যমে এ তথ্য বেরিয়ে আসে। মঙ্গলবারের এ ঘটনায় নিহত ছাড়াও নিখোঁজ ৪১ জনের সন্ধানে উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। খবর রয়টার্স।

খবরে বলা হয়েছে, ফেরিটির ৬৯ জন যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ প্রশমন সংস্থা।

 

বিশ্বের গভীরতম আগ্নেয় হ্রদ তোবায় অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাই একটি ফেরি ডুবে দুইশতাধিক লোকের মৃত্যুর কয়েক সপ্তাহ পর দেশটির সুলাওয়েসি দ্বীপের কছে আবার আরেকটি ফেরি ডুবির ঘটনা ঘটল।

 

দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফেরিটিতে অতিরিক্ত যাত্রীর পাশাপাশি যানবাহনের পরিমান তুলনামূলক হারে বেশি থাকার কারণে তা ডুবে যায়। ডোবার সময় ফেরিটি উপকূলের কাছাকাছি ছিল। তবে এখন ৬৯ জন পর্যন্ত শোনা গেলেও ঠিক কতজনকে উদ্ধার করা হয়েছে তা সম্পর্কে জানাতে পারেননি কর্মীরা।

 

 

চলাচলের মৌলিক নিয়ম না মানায় দেশটিতে প্রায়ই ফেরি ডুবির ঘটনা ঘটে। গতমাসে দেশটির সবচেয়ে গভীর আগ্নেয়গিরি হ্রদ লেকটোবায় ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়ে ২০০ জন নিহত হয়েছেন।

 

ইন্দোনেশিয়ার যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ডুবে যাওয়ার সময় তীরের খুব কাছাকাছি থাকা নৌযানটির ক্যাপ্টেন ফেরিটিকে একটি প্রবাল প্রাচীরের দিকে চালিয়ে নিয়ে যান। উদ্ধার তৎপরতা সহজ করতেই তিনি হয়তো এমনটি করেছেন।

 

প্রসঙ্গত, সাধারণ নিরাপত্তা বিধি না মানায় ও অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাইয়ের কারণে ইন্দোনেশিয়ায় প্রায়ই নৌকা ডুবে বহু মানুষের মৃত্যু হয়। এছাড়া লেকটোবা বিশ্বের গভীরতম হ্রদগুলোর মধ্যে একটি। শত বছরে একবার সেখানে অগ্নি উদগিরণ হয়। তবে আবহাওয়ার উপর ভিত্তি করে সেখানে লাভার উৎপত্তি হয়ে থাকে।

READ  হুজুর কেবলাকে একনজর দেখতে রাস্তার দুপাশে ঠাঁই নেই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*