চট্টগ্রামের পাঠকপ্রিয় অনলাইন

মেক্সিকো সীমান্তে ৩০০০ শিশুকে পরিবারের কাছে ফেরত পাঠাতে ডিএনে পরীক্ষা

সিটিজি বাংলা, আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

 

যুক্তরাষ্ট্রের মেক্সিকো সীমান্তে অবৈধ আভিবাসন প্রত্যাশীদের আটকের পর তাদের সঙ্গে থাকা হাজার হাজার শিশুকে আলাদা করা হয়।

তবে দেশব্যাপী বিক্ষোভের পর এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে ট্রাম্প প্রশাসন। এরপর দেশটির ফেডারেল আদালত ইতোমধ্যে বিচ্ছিন্ন হওয়া শিশুদের তাদের পরিবারে কাছে ফিরিয়ে দেয়ার আদেশ দিয়েছে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে শিশুদের তাদের পরিবারের কাছে ফেরাতে ডিএনএ টেস্টের আশ্রয় নিচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য এবং মানব সেবা সচিব অ্যালেক্স আজার বৃহস্পতিবার একথা বলেছেন। এ খবর দিয়েছে টাইম।

 

বৃহস্পতিবার একটি কনফারেন্সে সাংবাদিকদেরকে আজার বলেন, পাঁচ বছরের কম বয়সী শতাধিক শিশুসহ তিন সহস্রাধিক শিশু শরণার্থী পুনর্বাসন কার্যালয় দ্বারা পরিচালিত কেন্দ্রে রয়েছে। তাদের তত্ত্বাবধানে ১১ হাজার ৮০০ বাচ্চা রয়েছে। যাদের অধিকাংশই একাকী সীমান্তে পৌঁছায়।

 

আজার বলেন, ফেডারেল আদালতের আদেশ মেনে সরকার ডিএনএ পরিচালনা করছে। যাতে করে দ্রুত শিশুর পিতামাতার পরিচয় নিশ্চিত করা যায়। এ বিষয়ে প্রথম প্রতিবেদন প্রকাশ করে সিএনএন। সেখানে বলা হয়, প্রশাসনের হেফাজতে থাকা পরিবারগুলোর ওপর ডিএনএ টেস্ট পরিচালনা করছে সরকার। এটা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের মধ্যে উদ্বেগ বেড়েছিল।

 

বেশ কিছুদিন ধরে মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করা অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের ব্যাপারে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করে ট্রাম্প প্রশাসন।

এছাড়া সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ করা ব্যক্তিদের আটককেন্দ্রে পাঠানো হয়। আর তাদের সঙ্গে থাকা শিশুদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করে আলাদা শরণার্থী পরিচর্যাকেন্দ্রে পাঠানো হয়।

 

পরিবার থেকে শিশুদের বিচ্ছিন্ন করার এমন নীতির পর পুরো যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে মার্কিনীরা। আর ট্রাম্পের এমন নীতির বিপক্ষে অবস্থান নেন স্বয়ং মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। এরপরই এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন ট্রাম্প।

 

তবে পরিবার থেকে শিশুদের বিচ্ছিন্ন করার নীতি থেকে সরে আসলেও অবৈধ অভিবাসনের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতিতে অবিচল রয়েছেন ট্রাম্প।

READ  কামরাঙ্গীরচরের প্লাস্টিক কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*