চট্টগ্রামের পাঠকপ্রিয় অনলাইন

বাংলাদেশে দেড় ঘণ্টা পর ইন্টারনেট চালু হলেও বন্ধ আছে ফেসবুক

সিটিজি বাংলা২৪ ডটকম::  ইতিহাসে প্রথমবারের মতো প্রায় দেড় ঘণ্টা ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব থেকে বিচ্ছিন্ন থাকল বাংলাদেশ।

বুধবার বেলা সোয়া ১টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে কেউ কোনো ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারেননি। এরপর ইন্টারনেট সংযোগ ফিরতে শুরু করলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক  ও অ্যাপ ব্যবহারের সুযোগ বন্ধ রয়েছে এখনও।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, “ফেইসবুক, ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জার, ভাইবার ও হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।”

ওই চার লিংক বন্ধ রাখার পাশাপাশি টুইটার, ট্যাংগো, ইমুসহ সামাজিক যোগাযোগের অন্যান্য অ্যাপেও নজরদারি চালানো হচ্ছে বলে টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছেন।

‘বৃহত্তর স্বার্থে’ এই কষ্ট মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেছেন, “দেশ ও জাতির নিরাপত্তার স্বার্থেই এগুলো বন্ধ করা হয়েছে।”

চলতি বছরের শুরুতে বিএনপির নেতৃত্বে ২০ দলীয় জোটের হরতাল-অবরোধের সময়ও ‘ভাইবার’ ও ‘হোয়াটসঅ্যাপ’সহ ইন্টারনেটে যোগাযোগের কয়েকটি মাল্টিমিডিয়া অ্যাপ কয়েক দিনের জন্য বন্ধ রাখা হয়।

তখন পুলিশ বলেছিল, নাশকতাকারীরা মোবাইল ফোনে কথা না বলে ইন্টারনেটভিত্তিক এসব অ্যাপ ব্যবহার করায় তাদের ধরতে সমস্যা হচ্ছে।

সম্প্রতি দুই বিদেশি নাগরিক হত্যা ও পুলিশের তল্লাশি চৌকিতে হামলার ঘটনার পর গত ৮ নভেম্বর এক সংবাদ সম্মেলনে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করে জঙ্গিরা কার্যক্রম চালাচ্ছে।

জঙ্গিদের যোগাযোগ ও অর্থায়ন বন্ধে তাদের শনাক্ত করতে কিছু ‘অ্যাপ’ বন্ধ করাসহ ইন্টারনেটের উপর ‘সাময়িক কড়াকড়ি’ আরোপের ইঙ্গিত দেন তিনি ওই সংবাদ সম্মেলনে। পরে এক অনুষ্ঠানে আবারও তিনি একই কথা বলেন।

এ বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের পর ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, “ফেইসবুক, ভাইবার, হোয়টসআপ দিয়ে অনেকেই নাশকতা চালিয়ে থাকে। এজন্য সরকার এগুলো বন্ধ করে দিতে পারে।”

তার আগেই বেলা ১১টার দিকে বিটিআরসির কাছ থেকে ফেইসবুক ও তিনটি ম্যাসেঞ্জার অ্যাপ বন্ধ করার বিষয়ে নির্দেশনা পান বলে জানান একটি আইএসপির একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা।

READ  চট্টগ্রামে এক্টিভ সিটিজেন ইয়ুথ লিডারশীপ ট্রেনিং সম্পন্ন

মোবাইল ফোন সেবাদানকারী একটি প্রতিষ্ঠানের আরেক কর্মকর্তা জানান, ইন্টারনেট সেবা দেয় এমন সব প্রতিষ্ঠানকেই পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ফেইসুবক, ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জার, ভাইবার ও হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

এরপর বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে ফেইসবুক ও ভাইবার ব্যবহারে সমস্যা হওয়ার অভিযোগ আসতে থাকে। সোয়া ১টার দিকে বন্ধ হয়ে যায় ইন্টারনেটে সব যোগাযোগ।

এরপর বেলা আড়াইটার আগে ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে এবং অপারেটরগুলো বিটিআরসির কাছ থেকে সেবা চালু করার সবুজ সংকেত পায়। আড়াইটার পর ব্যবহারকারীরাও আবার ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবে যুক্ত হতে পারেন।

এর আগে বাংলাদেশে ইন্টারনেট সংযোগ কখনো বন্ধ রাখা হয়নি। বিগত সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালে কারফিউয়ের মধ্যে মোবাইল ফোন সেবা সাময়িক বন্ধ থাকলেও ইন্টারনেট চালু ছিল।

এরপর একবার বিটিআরসি ইন্টারনেটের আপলোড গতি কমানোর নির্দেশনা দিলেও ইন্টারনেট তখনও পুরোপুরি বন্ধ হয়নি।

অবশ্য ছয়টি ইন্টারন্যাশনাল টেরিস্ট্রেরিয়াল কেবল (সাবমেরিন কেবলের বিকল্প) সংযোগের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার আগে একমাত্র সাবমেরিন কেবলে সমস্যা হলে বাংলাদেশের ব্যবহারকারীরা ইন্টারনেটে যুক্ত হতে পারতেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*